সোমবার, ১৮ ডিসেম্বর ২০১৭রেজি:/স্মারক - ০৫.৪২.৫১০০.০১৪.৫৫.০৩৭.১২-৫৬২
Menu

অরক্ষিত চৌফলদন্ডী-খুরুস্কুল সংযোগ ব্রীজের নিরাপত্তা নিশ্চিতের দাবী

অরক্ষিত চৌফলদন্ডী-খুরুস্কুল সংযোগ ব্রীজের নিরাপত্তা নিশ্চিতের দাবী

কক্সবাজার সদর উপজেলার চৌফলদন্ডী-খুরুস্কুল সংযোগ ব্রীজ জন নিরাপত্তা অরক্ষিত হয়ে পড়েছে। দিন দিন এ ব্রীজে ছোটখাট ঘটনা ঘটলেও পুলিশ নির্বিকার। অন্যদিকে পর্যটনের অপার সম্ভাবনা এ ব্রীজ এলাকা পর্যটকদের হাতছানি দিয়ে ডাকছে। প্রায় ১ হাজার মিটারেরও বেশি এ ব্রীজের দু‘প্রান্তে বিকেল হলে বসে পর্যটকদের মিলন মেলা। বৃহত্তর ঈদগাঁর জনগোষ্টি সহ দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে ছুটে আসা পর্যটকরা সেতুর উপর বসে উপভোগ করেন দিনের সূর্যাস্থ। পাখির কলকাকলীতে ভরপুর প্যারাবন, সারি সারি ফিশিং ট্রলার, জেলে মাঝি মাল্লার কুলাহল যেন নিত্যনৈমত্তিক ব্যাপার। দূর থেকে মহেশখালীর আদিনাথ, জেটি ঘাট দেখার সুযোগ হয় এ ব্রীজে বসে। তবে পর্যটকদের ভয় নিরাপত্তার অভাব। তারা সন্ধ্যা নাগাদ ব্রীজ-ঘাট এলাকায় নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে স্থানীয় চৌফলদন্ডীর পুলিশ ফাঁড়ির টহল ব্যবস্থা জোরদারের দাবী জানান। দৈনিক আমাদের কক্সবাজারের এক তথ্যানুসন্ধানে জানা গেছে বিগত বছর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ব্রীজটি উদ্ভোধন করেন। উদ্ভোধনের পর থেকে ঈদগাঁর সংখ্যা গরিষ্ট লোকজন এ ব্রীজ দিয়ে কক্সবাজারে যাতায়ত করেন। ঈদগাঁহ বাস ষ্টেশন থেকে কক্সবাজার শহরে যেতে প্রায় ৪০ মিনিট সময় লাগলেও চৌফলদন্ডি খুরুস্কুল সড়ক দিয়ে যেতে সময় লাগে মাত্র ২৫ মিনিট। ভাড়াও তুলনামূলক ভাবে কম। তবে লক্কর ঝক্কর মার্কা গাড়ির কারনে সেবার মান তেমন ভাল নেই। অভিযোগ উঠেছে ইসিসি সার্ভিসের নামে নামানো হয়েছে গরুর (ম্যাজিক) গাড়ি। সড়কের বেহাল দশা হলেও কমতি নেই যাত্রীদের। দম ফেলার সুযোগ পাচ্ছে না এ সড়কে চলাচল রত গাড়ি চালকরা। তারা জানিয়েছেন এসড়কে সন্ধ্যা নাগাদ পুলিশি টহল থাকলে নিরাপত্তা নিশ্চিত হবে। গতকাল সোমবার বিকেলে ব্রীজ এলাকা উপভোগ করতে এসেছেন এমন ক‘জনের সাথে কথা বলে জানা গেছে সেতুর উত্তর পাশে সন্ধ্যা হলেও থাকা যায় তবে দক্ষিণ পাশে তত নিরাপদ নই। স্থানীয় টাউট বাটপাররা সন্ধ্যা হলে ঐ প্রান্তে বসে গাজা খায়। অন্যদিকে তরুণ তরুনীরা থাকে ছিনতাই আতংকে। পোকখালীর সাবেক চেয়ারম্যান ফিরোজ আহমদ জানান এ ব্রীজ বৃহত্তর ঈদগাঁও বাসির জন্য যোগাযোগের বিরাট ভূমিকা পালন করছে। অপরদিকে ছেলে মেয়ে নিয়ে কিছুটা সময় বিনোদনের জন্য এ ব্রীজে কাটা যায়। ইসলামপুরের সাবেক চেয়ারম্যান মনজুর আলম জানান ঈদগাঁও বাসির জন্য জননেত্রী শেখ হাসিনার উপহার। এ ব্রীজের কারনে কক্সবাজার যোগাযোগ সহজ হয়েছে। অন্যদিকে ব্রীজের পাশে রয়েছে চৌফলদন্ডী মাছ ঘাট। দেশি বিদেশি পর্যটকদের সোনাদিয়া- ছিরাদিয়া- কাউয়ারদিয়া, মহেশখালী দেখার অপুর্ব সুযোগ সৃষ্টি করছে এ ব্রীজ। এ ব্যাপারে চৌফলদন্ডী পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ পর্যকটদের নিরাপত্তা ও আইন শৃংখলা রক্ষায় সার্বক্ষনিক খোঁজ খবর নিচ্ছেন বলে জানান।

আর্কাইভ