শুক্রবার, ১৯ জানুয়ারী ২০১৮রেজি:/স্মারক - ০৫.৪২.৫১০০.০১৪.৫৫.০৩৭.১২-৫৬২
Menu

বিয়ের পিঁড়িতে বসছেন রেলমন্ত্রী

বিয়ের পিঁড়িতে বসছেন রেলমন্ত্রী

ঢাকা অফিস :
আর মাত্র কয়েকটা দিন। তারপর আর একা থাকছেন না কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম থেকে নির্বাচিত সংসদ সদস্য, রেলমন্ত্রী মুজিবুল হক। বিয়ের পিঁড়িতে বসছেন তিনি। এখন থেকেই শুরু হয়েছে প্রস্তুতি। আগামী ডিসেম্বরেই তিনি দোকলা জীবনে প্রবেশ করবেন। অবসান ঘটবে তার ৬৮ বছর বয়সের চিরকুমার জীবনের। আপাদমস্তক রাজনীতিবিদ এই আওয়ামী লীগ নেতা এত দিন ছিলেন চিরকুমার। শেষ পর্যন্ত চিরকুমারত্বের অবসান ঘটিয়ে শুরু করতে যাচ্ছেন জীবনের নতুন ইনিংস। এ জন্য তাকে মন্ত্রিপাড়ায় বাসাও বরাদ্দ দেওয়া হচ্ছে। সংশ্লিষ্ট সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে। জীবনের প্রায় পুরোটা সময় রাজনীতিতে ব্যস্ত থাকা রেলমন্ত্রী বিয়ে করছেন এটি নিশ্চিত করেছেন একাধিক মন্ত্রী। গতকালের মন্ত্রিসভা বৈঠকে তার বিয়ের বিষয় নিয়ে অনানুষ্ঠানিক আলোচনা হয়েছে। ওই বৈঠকে উপস্থিত একজন প্রভাবশালী মন্ত্রী নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানান, বৈঠকে তেমন কোনো গুরুত্বপূর্ণ বিষয় নিয়ে আলোচনা না হলেও রেলমন্ত্রী মুজিবুল হকের মন্ত্রিপাড়ায় বাসা বরাদ্দের বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়। এতে একাধিক মন্ত্রী অংশ নেন। একজন মন্ত্রী জানান, রেলমন্ত্রীকে মন্ত্রিপাড়ায় বাসা বরাদ্দ দেওয়া হচ্ছে সংসারজীবন শুরু করার কারণে। শীঘ্রই তিনি ওই বাসা বুঝে পাবেন। একজন সিনিয়র মন্ত্রী জানান, মন্ত্রীদের পক্ষ থেকে রেলমন্ত্রীকে বলা হয়েছে, বিয়ে উপলক্ষে এক বা দুই দিনের অনুষ্ঠান করলে হবে না, কমপক্ষে চার দিনের অনুষ্ঠান করতে হবে। এতে মন্ত্রিসভা বৈঠকে বেশ হাস্যরস দেখা দেয়। মন্ত্রিসভার অন্য একজন সদস্য জানান, রেলমন্ত্রীর বিয়ের প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, এত দিন ট্রেনের ইঞ্জিন ছিল। এবার ইঞ্জিনের সঙ্গে বগিও যুক্ত হচ্ছে। প্রধানমন্ত্রীর কথায় বৈঠকে উপস্থিত প্রায় সবাই হাসিতে ফেটে পড়েন। এদিকে রেলমন্ত্রীর একটি ঘনিষ্ঠ সূত্র জানায়, মন্ত্রীর কনে দেখার কাজ ইতিমধ্যে চূড়ান্ত হয়েছে। কনে মন্ত্রীর পছন্দের। সবকিছু ঠিক থাকলে ডিসেম্বরেই বিয়ের পিঁড়িতে বসবেন সরকারের এই মন্ত্রী। এখন তার নতুন জীবন শুরুর প্রস্তুতি পর্ব চলছে। ওই সূত্রটিও নিশ্চিত করেছেন মন্ত্রিপাড়ায় রেলমন্ত্রীর বাসা বরাদ্দ পাওয়ার বিষয়টি।

আর্কাইভ