শুক্রবার, ১৯ জানুয়ারী ২০১৮রেজি:/স্মারক - ০৫.৪২.৫১০০.০১৪.৫৫.০৩৭.১২-৫৬২
Menu

নাম পদ্মা সেতুই হবে: যোগাযোগমন্ত্রী

নাম পদ্মা সেতুই হবে: যোগাযোগমন্ত্রী


পদ্মা সেতু কোনো ব্যক্তির নামে হবে না- প্রধানমন্ত্রী এই সিদ্ধান্ত দিয়েছেন বলে জানিয়েছেন যোগাযোগমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।
বাংলাদেশের দীর্ঘতম এই সেতু বঙ্গবন্ধুর স্ত্রী বেগম ফজিলাতুন্নেসা মুজিবের নামে করার প্রস্তাব ওঠার প্রেক্ষাপটে সোমবার কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে এক সমাবেশে মন্ত্রী একথা জানান।ওবায়দুল কাদের বলেছেন, পদ্মা সেতুর নামের বিষয়ে সিদ্ধান্ত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ইতোমধ্যে তাকে জানিয়ে দিয়েছেন।তিনি বলেন, নামকরণের ব্যাপারে সংসদে এবং সংসদের বাইরে অনেক আলোচনা হয়েছে। অনেকে বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের নামে সেতুর নামকরণের কথা বলেছেন।
“এটা শুধু ইমোশনের বিষয় নয়, যুক্তিও আছে। এই মহিয়সী নারী কখনো ফার্স্টলেডির মতো হননি। সারাজীবন শুধু ত্যাগ করেছেন।”
“প্রধানমন্ত্রী ও বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা এবং শেখ রেহানা দুজনে মিলে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন, পদ্মা সেতুর নাম পদ্মা সেতু হবে, কারো নামে হবে না। প্রধানমন্ত্রী আমাকে সংসদে ডেকে এ সিদ্ধান্ত জানিয়েছেন।”
সম্প্রতি সংসদে জাতীয় পার্টির সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য কাজী ফিরোজ রশীদ চৌধুরী পদ্মা সেতু বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের নামে করার দাবি তোলেন।নানা জটিলতায় আওয়ামী লীগ সরকারের গত মেয়াদে আটকে পড়া পদ্মা সেতু নির্মাণে চীনা একটি প্রতিষ্ঠানকে ইতোমধ্যে কাজ দেয়া হয়েছে।আশা করা হচ্ছে, ২০১৮ সালের মধ্যে ৬ কিলোমিটারের বেশি দীর্ঘ এই সেতুতে গাড়ি চলাচল করবে। ‘ক্ষতি করার সামর্থ্য বিএনপির নেই’ বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার আন্দোলনের হুমকির জবাবে ছাত্রলীগের ওই সমাবেশে ওবায়দুল কাদের বলেন, আওয়ামী লীগের ক্ষতি করার শক্তি বা সামর্থ্য বিএনপির নেই।“প্রতিবার শুনি ঈদের পর সরকার পতনের আন্দোলনে নামা হবে, কোন ঈদের পর আল্লাহই জানে? এখন তো আষাঢ় মাস, একটু ডাক শুনলেই বলি, এই বুঝি বৃষ্টি এল। কিন্তু আষাঢ়ের তর্জন-গর্জনই সার।”“তারা যতই আন্দোলন করার হুঙ্কার দিক, আন্দোলন করবার শক্তি, সামর্থ্য ও সাহস তাদের যে নেই, গত পাঁচ বছরের প্রমাণিত হয়েছে।”আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের সদস্য ও ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি এ কে এম এনামুল হক শামীমের ওপর হামলার প্রতিবাদে ডাকা সমাবেশে বক্তব্য রাখেন ওবায়দুল কাদের।ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ও আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য কাদের বলেন, “আপন ঘরে যার শত্রু, তাদের আর শত্রুর দরকার নেই, এই শিক্ষা আমাদের নিতে হবে।সমাবেশে বক্তব্য রাখেন হাছান মাহমুদ, আহমদ হোসেন, আফজাল হোসেন, পঙ্কজ দেবনাথ,মোল্লা মোহাম্মাদ আবু কায়সার, লিয়াকত সিকদার, মাহমুদ হাসান রিপন, মাহফুজুল হায়দার চৌধুরী রোটন প্রমুখ।ছাত্রলীগ সভাপতি এইচ এম বদিউজ্জামান সোহাগের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক সিদ্দিকী নাজমুল আলমের সঞ্চালনায় এই সমাবেশে সংগঠনটির বর্তমান নেতারাও বক্তব্য রাখেন।

আর্কাইভ