মঙ্গলবার, ১৬ জানুয়ারী ২০১৮রেজি:/স্মারক - ০৫.৪২.৫১০০.০১৪.৫৫.০৩৭.১২-৫৬২
Menu

নারী ব্যবসায়ীদের আলাদা চেম্বার!

নারী ব্যবসায়ীদের আলাদা চেম্বার!

ঢাকা অফিস :
নারীদের জন্য আলাদা চেম্বার করতে চায় ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন-এফবিসিসিআই। নারী উদ্যোক্তাদের পৃষ্ঠপোষকতা করতেই এই আলাদা চেম্বার গঠনের উদ্যোগ নিয়েছে তারা। জেলা পর্যায়ে নিয়মিত চেম্বারের পাশাপাশি নারীদের জন্য আলাদা চেম্বার নারী ব্যবসায়ীদের স্বার্থ নিয়ে কাজ করবে।
সম্প্রতি এফবিসিসিআই’র বর্তমান নেতৃত্ব এই নীতিগত সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে জানা গেছে। সূত্র বলছে, গত মাসের মাঝামাঝি এফবিসিসিআই’র একটি উচ্চ পর্যায়ের বৈঠকে বিষয়টি নিয়ে আলোচনাও হয়েছে। সেখানে এফবিসিসিআই এর বর্তমান নেতৃত্ব এই বিষয়টি নিয়ে নারী উদ্যোক্তাদের উৎসাহিত করেছে। এ বিষয়ে এফবিসিসিআই সভাপতি কাজী আকরাম উদ্দিন আহমেদ শনিবার বিকেলে টেলিফোনে জানান, এফবিসিসিআই নারী উদ্যোক্তাদের উৎসাহিত করতে চায়। দেশের মোট জনসংখ্যার অর্ধেকই নারী। তাই নারীদের বাদ দিয়ে টেকসই কোন উন্নয়ন সম্ভব নয়। তাই আমরা চাচ্ছি দেশের প্রতিটি জেলাতে নারীরা ব্যবসায় এগিয়ে আসুক। এফবিসিসিআই সব ধরনের সহায়তা দেবে। আলাদা চেম্বারের প্রসঙ্গ টেনে কাজী আকরাম বলেন, প্রতিটি জেলাতে নারীদের জন্য আলাদা চেম্বার করলে নারী উদ্যোক্তারা সংগঠিত হতে পারেন। তারা ব্যবসা-বাণিজ্যে আরো এগিয়ে আসবেন।
দেশের প্রতিটি জেলায় কার্যপরিচালনাকারী চেম্বারের সঙ্গে নারী চেম্বারগুলো কাজ করবে বলে এফবিসিসিআই চাচ্ছে।
এফবিসিসিআই সূত্রে জানা গেছে, দেশে বর্তমানে ৫টি নারী চেম্বার ও অ্যাসোসিয়েশন রয়েছে। এগুলোর মধ্যে রয়েছে বাংলাদেশ উইমেন চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজ। সভাপতির দায়িত্বে রয়েছেন সঙ্গীতা আহমেদ। এর বাইরে চট্টগ্রাম চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্টাস্ট্রিজের নেতৃত্বে রয়েছেন এফবিসিসিআই এর বর্তমান প্রথম সহ-সভাপতি মনোয়ারা হাকিম আলী। ঢাকা চেম্বারের সভাপতি হচ্ছেন নাজ ফারহানা আহমেদ। এছাড়া এফবিসিসিআই’র তালিকা ভুক্ত দু’টি আলাদা অ্যাসোসিয়েশন রয়েছে। একটি বাংলাদেশ গ্রাসটরুট উইমেন এন্ট্রিপ্রিনিউর এবং অন্যটি বাংলাদেশ বিউটি পার্লার মালিক সমিতি। এফবিসিসিআই বলছে, সম্প্রতি তিনটি নারী চেম্বারের চূড়ান্ত অনুমোদন দিয়েছে এফবিসিসিআই। সেগুলো হলো-রংপুর চেম্বার, মানিকগঞ্জ চেম্বার এবং বরিশাল চেম্বার। কাজী আকরাম বলেন, সম্প্রতি আমরা নারী উদ্যোক্তাদের জন্য তিনটি চেম্বারের অনুমোদন দিয়েছি। তবে ব্যবসায়ীদের একটি অংশ অবশ্য নারী ব্যবসায়ীদের জন্য আলাদা চেম্বারের বিপক্ষে।তারা বলছেন, নারীদের জন্য আলাদা চেম্বার করলে জেলা পর্যায়ে মূল যে চেম্বারগুলো রয়েছে সেগুলোর কার্যক্রম বাধাগ্রস্ত হবে। বরং পরিচালিত এসব চেম্বারের সঙ্গে এক হয়ে কাজ করতে পারেন নারী উদ্যোক্তারা।

আর্কাইভ