মঙ্গলবার, ১৬ জানুয়ারী ২০১৮রেজি:/স্মারক - ০৫.৪২.৫১০০.০১৪.৫৫.০৩৭.১২-৫৬২
Menu

করেন। কিন্তু তাঁকে পাওয়া যায়নি। তিনি আরও জানান, তিনি খালেদা জিয়া

করেন। কিন্তু তাঁকে পাওয়া যায়নি। তিনি আরও জানান, তিনি খালেদা জিয়া

তা খালেদা জিয়ার বাসভবন ও রাজনৈতিক কার্যালয়ে ফোন করেন। কিন্তু তাঁকে পাওয়া যায়নি। তিনি আরও জানান, তিনি খালেদা জিয়ার বিশেষ সহকারি শামসুর রহমান শিমুল বিশ্বাসকে অনুরোধ করেছেন বিরোধীদলীয় নেতার বাসায় গিয়ে তাঁকে বিষয়টি জানাতে।

যোগাযোগ করা হলে বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার প্রেসসচিব মারুফ কামাল খান প্রথম আলো ডটকমকে বলেন, প্রধানমন্ত্রীর প্রেসসচিব তাঁকে বলেছেন, তাঁরা ফোনে চেষ্টা করে বিরোধীদলীয় নেতার সঙ্গে কথা বলতে পারেননি। পরে প্রধানমন্ত্রীর ‘সাপোর্টিং স্টাফ’রা বিরোধীদলীয় নেতার বিশেষ সহকারী শামসুর রহমান শিমুল বিশ্বাসের সঙ্গে যোগাযোগ করেন। শিমুল বিশ্বাস জানিয়েছেন, রাত নয়টায় তিনি চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে থাকবেন। ওই সময় চেয়ারপারসন কার্যালয়ে থাকবেন। ওই সময় ফোন করতে তিনি অনুরোধ করেছেন।

মারুফ কামাল আরও বলেন, বিরোধীদলীয় নেতার লাল টেলিফোন সচল আছে কি না তাও তাঁদের জানা নেই। তিনি বলেন, যেহেতু প্রধানমন্ত্রীর কর্মকর্তারা বলছেন, তারমানে তাঁরা অবশ্যই চেষ্টা করেছেন। কিন্তু এ বিষয়টিকে যতটুকু গুরুত্ব দেওয়া দরকার ছিল প্রধানমন্ত্রীর ‘সাপোর্ট স্টাফরা’ তা দেননি। তাঁরা ফোন করার আগে বিরোধীদলীয় নেতার কর্মকর্তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারতেন। কিন্তু তাঁরা তা না করে যোগাযোগ করেছেন পরে। আগে যোগাযোগ করলে সুবিধা হতো। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী ও বিরোধীদলীয় নেতার কর্মকর্তাদের মধ্যে যোগাযোগ অব্যাহত রয়েছে। যেকোনো সময় দুই নেত্রীর কথা হতে পারে।

আর্কাইভ