বুধবার, ১৭ জানুয়ারী ২০১৮রেজি:/স্মারক - ০৫.৪২.৫১০০.০১৪.৫৫.০৩৭.১২-৫৬২
Menu

কমলনগরে অপহৃত ৫জেলে উদ্ধার, জলদস্যু রহিম আটক

কমলনগরে অপহৃত ৫জেলে উদ্ধার, জলদস্যু রহিম আটক

কমলনগর (লক্ষ্মীপুর) প্রতিনিধি: লক্ষ্মীপুরের কমলনগরের মেঘনা নদী থেকে মুক্তিপণের দাবীতে অপহৃত ৫জেলেকে স্থানীয়দের সহযোগীতা উদ্ধার করেছে পুলিশ। এসময় আবদুর রহিম (৩৫) নামে এক জলদস্যুকে আটক করা হয়।

মঙ্গলবার (৪জুলাই) বিকালে কমলনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আকুল চন্দ্র বিশ্বাস জেলেদের উদ্ধার ও জলদস্যু আটকের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এর আগে ভোর রাতে কমলনগর মেঘনা নদী থেকে স্থানীয়দের সহযোগীতায়  অপহৃত জেলেদের উদ্ধার ও জলদস্যুকে আটক করা হয়।

আটক জলদুস্য আবদুর রহিম ভোলা জেলার ইলিশা ইউনিয়নের সোনাডগী গ্রামের মৃত ইসলাম বেপারীর ছেলে। তার বিরুদ্ধে নদীতে ডাকাতি ও ছিনতাইসহ একাধিক মামলা রয়েছে। সম্প্রতি সে কারাগারে বন্দি ছিলেন। গত ২৩জুন একটি মামলায় সে জামিনে মুক্তি পায়।

উদ্ধার হওয়া জেলেরা হলেন, কমলনগর উপজেলার সাহেবেরহাট ইউনিয়নের শেখ ফরিদের ছেলে জাহাঙ্গীর আলম (২৫), নেজামল হকের ছেলে মোবারক মাঝি (৩৩), কালকিনি ইউনিয়নের আবুল কালাম আজাদের ছেলে আওলাদ হোসেন (২৮), লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার ভবানীগঞ্জ ইউনিয়নের চর উভুতি গ্রামের মহসিনের ছেলে আজগর (২০) ও ভোলার চর পাতা গ্রামের জানে আলমের ছেলে মামুন (২৭)।

কমলনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আকুল চন্দ্র বিশ্বাস জানান, সোমবার (৩জুলাই) গভীর রাতে আটক আবদুর রহিমসহ ১৪/১৫জনের একদল জলদস্যু মেঘনা নদীতে জেলেরা মাছ ধরার সময় তাদের নৌকা ও ট্রলারে হানা দেয়। এসময় বিভিন্ন নৌকা থেকে ৫জন জেলেকে মুক্তিপণের দাবিতে অপহরণ করে।
 
এঘটনায় স্থানীয় লোকজন ও জেলেরা সংঘবদ্ধ হয়ে জলদস্যুদের ধাওয়া করে। এতে জলদস্যু আবদুর রহিম আটক হলেও অন্যরা পালিয়ে যায়। খবর পেয়ে স্থানীয়দের সহযোগীতায় পুলিশ এসে অপহৃত জেলেদের উদ্ধার করেন। এসময় জলদস্যুদের ব্যবহৃত ট্রলার থেকে ৭টি বগি দা জব্দ করা হয়। উদ্ধার হওয়া জেলেদেরকে পরিবারে কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। মামলার প্রস্তুতি চলছে; বুধবার (৫জুলাই) আটক আবদুর রহিমকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হবে জানান ওসি।

আর্কাইভ