মঙ্গলবার, ১৬ জানুয়ারী ২০১৮রেজি:/স্মারক - ০৫.৪২.৫১০০.০১৪.৫৫.০৩৭.১২-৫৬২
Menu

চট্টগ্রামস্থ রামগতি কমলনগর সমিতির ইফতার মাহফিল ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত

চট্টগ্রামস্থ রামগতি কমলনগর সমিতির ইফতার মাহফিল ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত

শুক্রবার ১৭ জুন ২০১৬

এম আর পাটওয়ারী; চট্টগ্রাম ফিরে: চট্টগ্রামস্থ রামগতি কমলনগর উপজেলা সমিতির ইফতার মাহফিল ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শুক্রবার (১৭জুন) বিকেল ৪ঘটিকায় চট্টগ্রাম আলমাস সিনেমা হল সংলগ্ন গুলশান কমিউনিটি সেন্টারে সমিতির উদ্দ্যোগে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

প্রধান অতিথিকে ফুল দিয়ে বরণ করেন সমিতির আহবায়ক ইঞ্জিনিয়ার মোহাম্মদ আবদুস সহিদ ও সদস্য সচিব এম আবদুল বাতেন বিপ্লব।

চট্টগ্রামস্থ রামগতি কমলনগর উপজেলা সমিতির সদস্য সচিব এম আবদুল বাতেন বিপ্লব এর সঞ্চালনায় ও আহবায়ক ইঞ্জিনিয়ার আবদুস সহিদ এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের জনপ্রসাশন মন্ত্রনালয়ের সংসদীয় স্থায়ী কমিটির অন্যতম সদস্য, লক্ষ্মীপুর-৪ রামগতি কমলনগর আসনের সংসদ সদস্য বীরমুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব মোহাম্মদ আবদুল্লাহ আল মামুন (এমপি)।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রামস্থ লক্ষ্মীপুর জেলা সমিতির সভাপতি আলহাজ্ব এম এ কাশেম, ফটিকছড়ি উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ নজরুল ইসলাম, চট্টগ্রাম কর অঞ্চল ৪ এর উপ-কর কমিশনার মোহাম্মদ হারুন-অর-রশিদ পিন্টু, চট্টগ্রাম বিভাগ উপ-শ্রম পরিচালক মোহাম্মদ নাহিদুল ইসলাম, আর্ন্তজাতিক মানবাধিকার গোয়েন্দা সংবাদ সোসাইটির চেয়াম্যান মোহাম্মদ দিলদার হোসেন, কেন্দ্রীয় শ্রমিক লীগ নেতা, লক্ষ্মীপুর ৪ রামগতি কমলনগর আসনের মাননীয় সংসদ সদস্যের প্রতিনিধি এডভোকেট আনোয়ারুল হক, কমলনগর উপজেলা আওয়ামী লীগ সিনিয়র সহ সভাপতি ও হাজিরহাট ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এবং মহাসচিব চট্টগ্রামস্থ রামগতি কমলনগর সমিতি মোহাম্মদ নিজাম উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক ও পাটওয়ারীহাট ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান এডভোকেট একেএম নুরুল আমিন রাজু, মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব আবদুল ওয়াহেদ মুরাদ।

প্রধান অতিথি মোহাম্মদ আবদুল্লাহ আল মামুন (এমপি) তাঁর বক্তব্যে বলেন আজকের এই মনোরম পরিবেশে চট্টগ্রামস্থ রামগতি কমলনগর উপজেলা সমিতির উদ্যোগে আয়োজিত ইফতার মাহফিল ও আলোচনা সভায় মাননীয় সভাপতি, বিশেষ অতিথি বৃন্দ ও সমাবেত সুধীদের জানাচ্ছি শুভেচ্ছা স্বাগতম।
আজকের এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকতে পেরে আমি আন্তরিক ভাবে আনন্দিত হয়েছি। এবং এই মহতী অনুষ্ঠানের উদ্যোক্তাদের ধন্যবাদ জানাচ্ছি।

দলমত নির্বিশেষে আজকের এই স্বতঃস্পূর্ত মিলন ও সৌহার্দ ভবিষ্যতেও অটুট থাকুক বয়ে আনুক এমনধারা সম্প্রীতির বার্তা এ কামনাই করছি।

জীবন যুদ্ধের এই কঠিন প্রান্তরে এই মিলন ও সমাবেশ হয়তো এনে দিতে পারে সোনালী ভবিষ্যতের নতুন দিগন্ত। বস্তুতঃ এই অনুভূতি টুকই সঞ্চারিত হয়েছে সকলেন মাঝে।

সম্মিলনই সম্প্রীতির বাহন। পারস্পারিক সৌহার্দ, সম্প্রীতি ও সহমর্মিতা বোধে সমৃদ্ব রামগতি কমলনগর উপজেলা সমিতি-চট্টগ্রাম যে একটি সর্বজন স্বীকৃত সমিতি এ সমাবেশে তা প্রমান করেছে।

কোন রাজনৈতিক গোষ্ঠীগত পদমর্যাদা বা সম্প্রদায়গত পরিচয়ে নয় একটি মাত্র পরিচয়ে আমরা এখানে পরিচিত। আর তা হচ্ছে আমরা সবাই লক্ষ্মীপুর জেলার রামগতি-কমলনগরের অধিবাসী। নিজ নিজ পেশায় নিয়োজিত থাকলেও দলমত নির্বিশেষে একই পতাকা তলে সমাবেত হতে পেরেছি।
 
মত ও পথের ভিন্নতা সত্বেও আন্তরিকতার থাকলে সংর্কীণতার উর্ধ্বে উঠে হৃদয়ের উদারতা দিয়ে মিলে মিশে কাজ করা যায়। এটি তারই একটি উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত। বিত্ত আর পদবি যেন এর মাঝে দেওয়াল গড়তে না পারে।

যে হৃদ্যতাপূর্ণ পরিবেশে ঐক্যবদ্ধভাবে এগিয়ে যাবার যে দৃঢ় প্রত্যয়ে যাত্রা শুরু হয়েছে রামগতি-কমলনগর উপজেলা সমিতি-চট্টগ্রাম ভবিষ্যতেও এ ঐতিহ্য ধারাবাহিতকা অক্ষুন্ন রাখতে হবে।

সর্বশেষে সকলের সু স্বাস্থ্য ও দীর্ঘ জীবন কামনা করছি। রামগতি কমলনগর উপজেলা সমিতি চট্টগ্রাম আরো সমৃদ্ব হোক। আরো গতিশীল, প্রাণবন্ত ও প্রসারিত হোক। এটি হয়ে উঠুক দলমত নির্বিশেষে রামগতি-কমলনগর উপজেলার সকলের অনাবিল প্রশান্তির মিলনকেন্দ্র।
অন্যান্যের মাঝে বক্তব্য রাখেন ডাক্তার সি এস দাস, ড. মনির আহম্মেদ, প্রফেসর মোশারেফ হোসেন, এড. নুরুল আমিন, ফয়জুল ইসলাম বাবু, মিজানুর রহমান, আকতাফ হোসেন, মোহাম্মদ কবির হোসেন, মোহাম্মদ রাসেল পাটওয়ারী, গোলাম মোর্শেদ, নেতা আবুল কালাম আজাদ, আবুল কালাম আজাদ, আক্তারুজ্জামান নোমান, ফয়সল মোহন, ও মিরাজসহ প্রমূখ।

সভা শেষে বিশেষ মোনাজাত পরিচালনা করেন চট্টগ্রাম সেনানিবাস জামে মসজিদের খতিব মাওলানা মোহাম্মদ যোবায়ের।

আর্কাইভ