বুধবার, ১৭ জানুয়ারী ২০১৮রেজি:/স্মারক - ০৫.৪২.৫১০০.০১৪.৫৫.০৩৭.১২-৫৬২
Menu

রামগতিতে মৎস্য শিকারের দায়ে ৮ জেলের জরিমানা

রামগতিতে মৎস্য শিকারের দায়ে ৮ জেলের জরিমানা

মঙ্গলবার ২ মার্চ ২০১৬ খ্রি: সময়: ২:৪০ পিএম
মিসু সাহা নিক্কন, রামগতি থেকে : লক্ষ্মীপুরের রামগতিতে মৎস্য শিকারের দায়ে ৮ জেলেকে ৪ হাজার টাকা করে জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত।

মঙ্গলবার (১ মার্চ) সন্ধ্যা সাড়ে ৭ টার দিকে ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) এস এম শফি কামাল এ রায় দেন।
এরআগে মঙ্গলবার বিকাল ৫ ঘটিকার সময় রামগতি মাছঘাট এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করে নৌ- পুলিশ। এসময় ৭০০ মিটার কারেন্ট জাল, ২ টি বেহেন্দি জাল ও ১০০ কেজি পোয়া মাছের পোনা জব্দ করা হয়।

অর্থদন্ডপ্রাপ্তরা হলেন, উপজেলার চরলক্ষ্মী গ্রামের মদন মোহন জলদাসের ছেলে ললিত মোহন জলদাস(৪০), জয় জলদাসের ছেলে অনন্ত জলদাস(৩২), যতীন্দ্র জলদাসের ছেলে ক্ষীরমন জলদাস(২৭), শ্যামকমল জলদাসের ছেলে শীপন জলদাস(২৫), মৃত গৌরাঙ্গ জলদাসের ছেলে রাধা কমল জলদাস(৪২), মনোরঞ্জন জলদাসের ছেলে বিপ্লব জলদাস(২২), রাধামন জলদাসের ছেলে বিপ্লব জলদাস(২০), সুমঙ্গল জলদাসের ছেলে সারধা জলদাস(৫০)। তাদের প্রত্যেকের ৪হাজার টাকা করে মোট ৩২০০০টাকা জরিমানা করা হয়।

ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) এস এম শফি কামাল এবং উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা (ভার:) মো: ইউসুফ মিয়ার উপস্থিতিতে জব্দকৃত জালে প্রকাশ্যে আগুন লাগিয়ে ধ্বংস করা হয় ও পোয়া মাছের পোনাগুলোকে স্থানীয় লোকজনের মাঝে বিতরণ করা হয়েছে।

ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) এস এম শফি কামাল বলেন, নিষিদ্ধ সময়ে মাছ ধরায় এদের ওই জরিমানা করা হয়েছে। মৎস্য রক্ষা ও সংরক্ষন আইন ১৯৫০ এর ৪(ক) ধারায় ওই অর্থদন্ড করা হয়েছে বলেও তিনি জানান।

প্রসঙ্গত, লক্ষ্মীপুরের রামগতি থেকে চাঁদপুরের ষাটনল পর্যন্ত মেঘনা নদীর প্রায় ১’শ কিলোমিটার এলাকায় ২ মাস পর্যন্ত মাছ ধরা যাবে না। পরিবহন, মজুদ, বাজারজাতকরণ ও ক্রয়-বিক্রয় নিষিদ্ধ। নিষেধাজ্ঞা অমান্য করলে কমপক্ষে ৬ মাসের সশ্রম কারাদন্ড, ৫ হাজার টাকা পর্যন্ত জরিমানা অথবা উভয় দন্ডে দন্ডিত করার বিধান রয়েছে।

আর্কাইভ